ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্ক: পটিয়া উপজেলার হাইদগাঁও গ্রামে নলকূপ স্থাপন করতে গিয়ে গ্যাসের সন্ধান পাওয়া গেছে। রবিবার দুপুরে উপজেলার হাইদগাঁও ইউনিয়নের চর নতুন পাড়া গ্রামের নাছির উদ্দিনের বাড়ীতে নলকূপের মিস্ত্রিরা এ গ্যাসের সন্ধান পায়।

পটিয়ায় নলকূপ দিয়ে গ্যাস নির্গমন!!

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্ক: পটিয়া উপজেলার হাইদগাঁও গ্রামে নলকূপ স্থাপন করতে গিয়ে গ্যাসের সন্ধান পাওয়া গেছে। রবিবার দুপুরে উপজেলার হাইদগাঁও ইউনিয়নের চর নতুন পাড়া গ্রামের নাছির উদ্দিনের বাড়ীতে নলকূপের মিস্ত্রিরা এ গ্যাসের সন্ধান পায়।

স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নাছির উদ্দিন তাঁর বাড়ীতে পানি নেওয়ার জন্য একটি নলকূপ স্থাপনের পরিকল্পনা করেন। সে মোতাবেক গত শুক্রবার বাড়ির পূর্ব পাশে বসতভিটায় ১৫০ ফুট নিচ পর্যন্ত পাইপ বসানোর জন্য মিস্ত্রি দিয়ে নলকূপ স্থাপনের জন্য গর্ত করেন। মিস্ত্রিরা পাইপ ১০০ ফুট নিচে দেওয়ার পর তা আটকে যায়। বিষয়টিকে গুরুত্ব না দিয়ে তাঁরা গর্তের মুখে মাটি দিয়ে ফিরে আসেন। পরদিন গতকাল দুপুরে মিস্ত্রিরা নলকূপ স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়ে পুনরায় সেখানে যায়। তাঁরা গর্তের মুখ দিয়ে গ্যাস বের হতে দেখে। একপর্যায়ে মাটির মধ্যে একটি শব্দ হলে বিষয়টিকে গুরুত্ব দেন নাছির উদ্দিন। এরপর দিয়াশলাই দিয়ে আগুন ধরিয়ে পাইপের মুখে ধরার সাথে সাথে আগুন জ্বলতে শুরু করে। অনেক চেষ্টা চালিয়ে সেই আগুন নেভানোর ব্যবস্থা করেন।

এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে এলাকার উৎসুক মানুষ বিষয়টি দেখার জন্য তার বাড়িতে ভিড় করে।

নাছির উদ্দিন জানান, পাইপ থেকে নীল রঙের পানি পড়ায় সন্দেহ হয়। তারপর মুখে আগুন ধরালে বুঝতে পারেন যে এটা গ্যাস। এরপর পাইপের চারপার্শ্বে ইট দিয়ে চুলার মতো তৈরি করে তাতে পানি গরম, চা তৈরি, খাবার গরমসহ নানাবিধ কাজ করছেন। যদি সরকারি উদ্যোগে পরীক্ষা করে দেখা হতো বা কোনো ব্যবস্থা নেয়া হতো তাহলে এ উপজেলার মানুষ প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহারের সুবিধা পেত।

খবর পেয়ে বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও রোকেয়া পারভীন, ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মহিউদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
ইউএনও রোকেয়া পারভীন বলেন, ‘খবর পেয়ে প্রকৌশলীকে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। প্রাথমিক পরীক্ষায় এটি মিথেন গ্যাস হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। দ্রুত পেট্রোবাংলার কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে জানানো হবে। সংশ্লিষ্ট বিভাগ গ্যাস নির্গমনের স্থানটি পর্যবেক্ষণ করার পর বাস্তব অবস্থা বলা যাবে।

Like us on https://www.facebook.com/VoiceofPatiyaFans
Share To:
Next
Newer Post
Previous
This is the last post.

Voice of Patiya

Post A Comment:

0 comments so far,add yours

Note: Only a member of this blog may post a comment.