vop-ad1

ভয়েস অব পটিয়াঃ প্রাণীদেহে সফলভাবে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর মানবদেহে ট্রায়ালের অনুমোদন পেলো দেশীয় প্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবিত করোনার ভ্যাকসিন বঙ্গভ্যাক্স

মানবদেহে ট্রায়ালের অনুমোদন পেলো দেশে উদ্ভাবিত করোনার ভ্যাকসিন ‘বঙ্গভ্যাক্স’; করোনা; করোনা ভাইরাস; করোনা ভ্যাকসিন; কোভিড-১৯; Covid-19; Covid; Corona; Vaccine
মানবদেহে ট্রায়ালের অনুমোদন পেলো দেশে উদ্ভাবিত করোনার ভ্যাকসিন ‘বঙ্গভ্যাক্স’

ভয়েস অব পটিয়া-ন্যাশনাল ডেস্কঃ প্রাণীদেহে সফলভাবে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সম্পন্ন হওয়ায় এবার দেশীয় ফার্মাসিউটিক্যাল প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক উদ্ভাবিত করোনার ভ্যাকসিন ‘বঙ্গভ্যাক্স’ মানবদেহে ট্রায়ালের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ চিকিৎসা গবেষণা পরিষদ (বিএমআরসি)।

আজ মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) এ অনুমোদন দেয়া হয়।

সম্প্রতি বানরের দেহে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর ভ্যাকসিনটির কার্যকরীতার ফলাফল সংক্রান্ত এক প্রতিবেদন বিএমআরসিতে জমা দেয় প্রতিষ্ঠানটি। প্রাথমিক ফলাফলে এই ভ্যাকসিন বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনার ১১টি ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকরী বলে দাবি করেছে ভ্যাকসিনটির উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড।

গ্লোব বায়োটেক জানায়, ‘বানর আর মানুষের মধ্যে জিনগত বেশ মিল থাকায় বানরের উপর ট্রায়ালে 'বঙ্গভ্যাক্স' সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং শতভাগ কার্যকর প্রমাণিত হওয়ায় আমরা খুবই আশাবাদী যে 'বঙ্গভ্যাক্স' মানবদেহেও অনুরুপভাবে কাজ করবে।’ 

চলতি বছরের ১৭ জানুয়ারী বঙ্গভ্যাক্সের প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের নীতিগত ট্রায়ালের জন্য বিএমআরসির কাছে প্রটোকল জমা দেয় গ্লোব বায়োটেক। এরপর বিএমআরসির চাহিদা অনুযায়ী ১৭ ফেব্রুয়ারী সংশোধিত প্রটোকল জমা দেওয়া হয়। গত ২২ জুন বিএমআরসি বানর বা শিম্পাঞ্জির দেহে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল করার শর্তে মানবদেহে বঙ্গভ্যাক্সের ট্রায়াল চালানোর অনুমতি প্রদান করে। ১ আগস্ট প্রতিষ্ঠানটি বানরের দেহে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করে, যা শেষ হয় ২১ অক্টোবর। 

উল্লেখ্য, এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রি-ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের তালিকাভুক্ত বাংলাদেশী এ প্রতিষ্ঠানটির ৩টি ভ্যাকসিন ইঁদুরের উপর সফল পরীক্ষা চালানোর পর এই ভ্যাকসিনটি কার্যকর ও সম্পূর্ণ নিরাপদ বলে দাবি করেছিলো গ্লোব বায়োটেক।

Share To:

Voice of Patiya

জানাতে পারেন আপনার মন্তব্য :

0 comments so far,add yours

~ মন্তব্য নীতিমালা ~

• আমাদের প্ল্যাটফর্মে বুদ্ধিদীপ্ত এবং অর্থপূর্ণ বিতর্ক বজায় রাখার জন্য আমরা একটি নীতিমালা তৈরি করেছি। আমরা আশা করি যে, কোন মন্তব্য পোস্ট করার সময় আপনারা তার অনুসরণ করবেন। ভয়েস অব পটিয়া কর্তৃপক্ষ ভিজিটর কর্তৃক নির্দেশিকা লঙ্ঘন করে এমন মন্তব্যগুলো মুছে ফেলার অধিকার সংরক্ষণ করে।

• জাতি, ধর্ম, বর্ণ, বয়স, লিঙ্গ, চেহারা বা অক্ষমতার ভিত্তিতে কোনো ব্যক্তি, কোন গোষ্ঠী বা সম্প্রদায়ের প্রতি আপত্তিকর বা আক্রমণ করে এমন ভাষায় মন্তব্য করা যাবে না।

• আলোচনার বিষয়ের সাথে সম্পর্ক নেই এমন কোন মন্তব্য পোস্ট করবেন না। কিছু বিষয় বিস্তৃত হিসাবে গণ্য করা যেতে পারে, তবে আলোচনাকে লাইনচ্যুত করতে পারে এমন কোনো বিষয় অনুমোদন করা হবে না। বিতর্ককে ট্র্যাকে রাখার জন্য এটি করা হবে যাতে এটি অর্থবহ থাকে।

• কোনো পক্ষকে আইনি ঝামেলায় ফেলতে পারে এমন মন্তব্য করা যাবে না। এ নির্দেশনা -- মানহানিকর এবং মানহানিকর কমেন্টের পাশাপাশি কপিরাইট লঙ্ঘন বা অন্যান্য প্রযোজ্য বাংলাদেশী আইনের দিকে পরিচালিত করতে পারে এমন মন্তব্যের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

• বাণিজ্যিক প্রকৃতির কিংবা বিজ্ঞাপনীয় উপাদান/লিঙ্ক রয়েছে এমন মন্তব্য পোস্ট করবেন না।

• যেসব মন্তব্য স্প্যামিং বলে মনে হচ্ছে এবং একাধিক পোস্ট জুড়ে অভিন্ন মন্তব্য পোস্ট করছে সেগুলো মুছে ফেলা হবে।

• ঘৃণাত্মক, সহিংসতার প্ররোচনা দেয় অথবা ধর্মকে আক্রমণ করে এমন কোন মন্তব্য করা যাবে না।