"পটিয়া সদর" ক্যাটাগরীর সকল আর্টিকেল
Showing posts with label পটিয়া সদর. Show all posts

 

ফ্রান্সে মহানবী (সাঃ)’র অবমাননার প্রতিবাদে পটিয়ায় বিক্ষোভ সমাবেশ
ফ্রান্সে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এঁর অবমাননার প্রতিবাদে পটিয়ায় বিক্ষোভ

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ ফ্রান্সে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এঁর ব্যাঙ্গাত্মক কার্টুন প্রদর্শনের প্রতিবাদে সারাদেশের ন্যায় দক্ষিণ চট্টগ্রামের প্রাণকেন্দ্র পটিয়ায় তৌহিদি জনতার উদ্যোগে এক বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

আজ শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) বাদে জুমা পটিয়া রেল স্টেশন চত্বর হতে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে পটিয়ার প্রধান প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে থানার মোড়ে এক প্রতিবাদ সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। উক্ত বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ হতে ফ্রান্সের রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় মহানবী (সাঃ) এঁর ব্যাঙ্গচিত্র অঙ্কনকারী ম্যাগাজিন শার্লি এব্দো ও এর সমর্থনকারী ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়। 

ফ্রান্সের ইসলাম বিদ্বেষ ও মহানবী (সাঃ) এর অবমাননায় বিশ্বের দুইশত কোটি মুসলমান ব্যথিত হয়েছে। ফ্রান্সের এহেন ইসলাম ও মুসলিম বিদ্বেষী কর্মকান্ড বন্ধ করতে হবে। ইসলাম ও মহানবী (সাঃ) এঁর অবমাননা কোনভাবেই বিশ্ব মুসলিম বরদাস্ত করবে না। বিক্ষুব্ধ মুসলমানদের হৃদয়ের ক্ষত মুছতে হলে ফ্রান্সকে অবিলম্বে রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষমা চাইতে হবে বলে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেন।

করোনা : এস.আলম পরিবারের ৬ সদস্য আক্রান্ত, ভবন লকডাউন; চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, এস. আলম গ্রুপ, সাইফুল আলম মাসুদ, পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স; পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কমপ্লেক্স; করোনা, করোনা ভাইরাস, কোভিড, কোভিড১৯, স্যানিটাইজার, কেরু এন্ড কোম্পানী, ফৌজদারহাট, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিকাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিডেজ, বিআইটিআইডি; Corona, Corona Virus, Covid, Covid19, Sanitizer, Carew and Company; Bangladesh Institute of Tropical and Infectious Disease, BITID, IEDCR
S Alam Group এস.আলম গ্রুপ

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ পটিয়ার বেকার সংস্থানের অগ্রদূত দেশের অন্যতম শীর্ষ ব্যবসায়ী গোষ্ঠী এস.আলম গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যানসহ এস.আলম গ্রুপ পরিবারের ছয় সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। 

রোববার (১৮ মে) চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষায় তাদের করোনাভাইরাস পজিটিভ আসে বলে জানা যায়। করোনার নমুনা পরীক্ষায় পজিটিভ আসার পর চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ থানার সুগন্ধা আবাসিক এলাকার ১নং রোডে অবস্থিত তাদের পারিবারিক ভবনকে পুলিশ ‘লকডাউন’ করে দিয়েছে বলে জানান পাঁচলাইশ থানার এসআই আবু তালেব। 

আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন এস.আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদের ভাই এস.আলম গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান ও আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান আবদুস সামাদ লাবু, এন.আর.বি গ্লোবাল ব্যাংকের পরিচালক মোরশেদুল আলম, এস আলম গ্রুপের পরিচালক রাশেদুল আলম, শহীদুল আলম, ওসমান গণি ও তাদের এক ভাইয়ের স্ত্রী। 
বিষয়টি নিশ্চিত করে এস.আলম গ্রুপের চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত সহকারী আকিজ উদ্দিন জানান,  তাদের পরিবারের সকল সদস্য ঘরেই আইসোলেশনে রয়েছেন। 
এস.আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদ, তাঁর স্ত্রী ও পরিবারের অন্য সদস্যরা বর্তমানে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন এবং সুস্থ আছেন।
পটিয়া বাইপাস সড়কে ফের ডাকাতি; পটিয়া বাইপাস, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক, সংবাদ, সারাদেশ, জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়, ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya
পটিয়া বাইপাস সড়কে ফের ডাকাতি

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ পটিয়া বাইপাস সড়কে ফের ডাকাতি। আজ রবিবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১২.৩০টার সময় পটিয়া বাইপাস সড়কের ভাটিখাইন ইউনিয়নাধীন বাকখালী বড়ুয়ার টেক সম্মুখ এলাকায় সংঘবদ্ধ ডাকাতদলের সদস্যরা বসতি এলাকা থেকে ৩ টি গরু ডাকাতি করে নিয়ে যায়। মসজিদের মাইকের মাধ্যমে তাৎক্ষণিক এই খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় জনতা ও পুলিশের টহল দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হওয়ার আগেই গরুচোর ডাকাতদলের সদস্যরা কমলমুন্সির হাটের দিকে পালিয়ে যায়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ ডাকাত দলের কাউকে গ্রেফতার করতে পারে নি।

দীর্ঘদিন ধরে পটিয়া বাইপাস সড়কে দিনে-দুপুরে কিশোর গ্যাংয়ের চুরি-ছিনতাই, রাতে ডাকাতদলের উৎপাতে আতঙ্কগ্রস্থ বাইপাস সড়ক সংলগ্ন বসতির এলাকাবাসীরা। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কর্তৃক কঠোর কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় এখন অবধি এই এলাকা চোর-ডাকাতদের নিরাপদ রুট হিসেবে পরিগণিত হচ্ছে। এলাকাবাসী উক্ত সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে উপজেলা প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন।


জাতীয়-আন্তর্জাতিক সংবাদসহ পটিয়া সম্পর্কে জানতে ও জানাতে আমাদের ফেসবুক পেজের সাথে থাকুন।
করোনা পজিটিভ : পটিয়ায় স্বাস্থ্যকর্মীকে পুঁড়িয়ে মারার হুমকি; পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স; পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কমপ্লেক্স; করোনা, করোনা ভাইরাস, কোভিড, কোভিড১৯, স্যানিটাইজার, কেরু এন্ড কোম্পানী, ফৌজদারহাট, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিকাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিডেজ, বিআইটিআইডি; Corona, Corona Virus, Covid, Covid19, Sanitizer, Carew and Company; Bangladesh Institute of Tropical and Infectious Disease, BITID, IEDCR
ছবি: পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কমপ্লেক্স | © voiceofpatiya.com

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক স্বাস্থ্যকর্মী ও তার পরিবারের সদস্যদের পুঁড়িয়ে মারার হুমকি দিয়েছে প্রতিবেশীরা।

আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মী পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে কর্মরত।
করোনা পজিটিভ আসার পর থেকে প্রতিবেশীরা তাকে উপর্যুপরি হত্যার হুমকি দিচ্ছে বলে জানিয়ে উপজেলা প্রশাসনকে সোমবার (১১ মে) মৌখিকভাবে অভিযোগ দিয়েছেন ওই স্বাস্থ্যকর্মী।

আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীর বাড়ি পটিয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড দক্ষিণ গৌবিন্দারখীল গ্রামের ছিবাতলী পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। 
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোঃ জাবেদ বলেন, ‘করোনা পজিটিভ হওয়া স্বাস্থ্যকর্মী হুমকির বিষয়টি সম্পর্কে আমাদেরকে ফোনে অবহিত করেছেন। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পটিয়া থানার ওসিকে জানানো হয়েছে।’

আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীর পিতার সাথে কথা বললে তিনি জানান, করোনা শনাক্ত হওয়ার সংবাদ পাওয়ার পর উপজেলা প্রশাসন গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টায় লকডাউন করার পর থেকে নিয়ম মেনে আইসোলেশনে আছে আমার ছেলে। রাত দেড়টার দিকে পাশের বাড়ির মাবিয়া খাতুন, আবদুর রহমান ও বাচাসহ কয়েকজন প্রতিবেশী আমার বাড়ির সামনে এসে চিৎকার-চেচামেচি ও গালাগাল করতে থাকে। তারা এলাকায় করোনা রোগী থাকতে পারবেনা বলে থাকলে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া হবে বলে হুমকি দেয়।’ 

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পটিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারহানা জাহান উপমা বলেন, ‘আমরা আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীর বাড়িতে আইসোলেশন নিশ্চিত করে তাদের খাবার দিয়ে এসেছি, সেই সাথে প্রতিবেশীদেরও সহমর্মিতা দেখাতে অনুরোধ করেছি।’ 

আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীর স্ত্রী বলেন, ‘আমার স্বামী আক্রান্ত হওয়ার আগে থেকেই আমি আমার বাবার বাড়িতেই রয়েছি। আমার স্বামী বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন। এখন পর্যন্ত আমি সেখানে যাই নি। এর মধ্যে গত শনিবার আমার বাবার বাড়িতেও পাড়ার লোকজন এসে বাড়ির পেছনের দরজা তালাবদ্ধ করে দিয়েছে, যাতে আমরা ঘর থেকে বের হতে না পারি। সেই সাথে তারা আমাকে ও আমার পরিবারকেও নানা অপবাদ দিয়ে পুঁড়িয়ে মারার হুমকি দিয়ে শাসিয়ে যাচ্ছে। আমার স্বামী একজন স্বাস্থ্যকর্মী। মানুষের সেবা দিতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছে। সেবা করা কি অপরাধ?’

পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেবাদাতা স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে গত ০৮ মে। ওই স্বাস্থকর্মী আক্রান্ত কোন রোগীর কাছ থেকে সংক্রমিত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। করোনা পজিটিভ হওয়ার পর ০৮ মে শুক্রবার থেকেই ১৪ দিনের জন্য আইসোলেশনে রয়েছেন আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মী। তবে এখনও কোনো উপসর্গ দেখা যায়নি। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ সার্বক্ষণিক তার খোঁজ খবর নিচ্ছে বলে জানিয়েছেন পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

পটিয়ায় মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে স্মারক পাবে ১০ হাজার শিক্ষার্থী;ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; মুজিববর্ষ, শিক্ষাঙ্গন, Voice of Patiya
পটিয়ায় মুজিববর্ষ উদযাপনের প্রস্তুতি সভায় মোড়ক উন্মোচন

ভয়েস অব পটিয়া
-সংবাদ বিজ্ঞপ্তিঃ 
মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে পটিয়া উপজেলার ১০ হাজার শিক্ষার্থীর মাঝে মুজিববর্ষের স্মারক হিসেবে টিশার্ট, লোগো ও মগ বিতরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আগামীকাল মঙ্গলবার ১৭ মার্চ সকাল ১০ টায় একযোগে উপজেলার ২২২ টি প্রাথমিক, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজে এ অনুষ্ঠানমালা শুরু হবে। এসময় শতশত কবুতর ও বেলুন উড়িয়ে বঙ্গবন্ধু ঘোষিত সাবেক মহকুমা (জেলা) বৃহত্তর পটিয়ায় মুজিববর্ষের সূচনা হবে। থাকবে জাতীয় সংগীত এবং ১০০ প্রতিবন্ধীকে হুইল চেয়ার বিতরণ কর্মসূচি।
পটিয়া বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের (পিডিবি) অনিয়ম-দুর্নীতি, গ্রাহকদের হয়রানী; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya
ছবিঃ পিডিবি পটিয়া দালাল গ্রুপের প্রধান সমন্বয়ক মনছুর
 
ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ পটিয়া বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের (পিডিবি) অনিয়ম-দুর্নীতি, দালালদের দৌরাত্ম, সাধারণ গ্রাহকদের হয়রানী বেড়েই চলছে।

মিটার রিডারদের মনগড়া বিল করার কারণে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে সাধারণ গ্রাহকরা। ইচ্ছাকৃতভাবে মনগড়া বিল করার কারণে ব্যবহারের অতিরিক্ত বিলের বোঝা বইতে হচ্ছে গ্রাহকদের। অতিরিক্ত বিলের ব্যাপারে অভিযোগ জানাতে গেলে অবৈধভাবে মামলা দেয়ার হুমকিতে হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে মোটা অংকের টাকা। এনালগ মিটারের পরিবর্তে ডিজিটাল মিটার স্থাপনের পরামর্শ দেয় রিডাররা। এতে নতুন মিটার স্থাপনে প্রতি মিটারে টেকনিশিয়ানরা হাতিয়ে নেয় ৫-১০ হাজার টাকা।

জানা যায়, পটিয়া বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের (পিডিবি) এক শ্রেণির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যোগসাজশে অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে সাধারণ গ্রাহকদের হয়রানী করতে তৎপর একটি দালাল গ্রুপ। এই দালাল গ্রুপের প্রধান সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করছে মনছুর নামক এক দালাল, তার সাথে সহায়ক হিসেবে আছে লাইনম্যান এনাম। দালাল মনছুর ও লাইনম্যান এনামের নেতৃত্বে পিডিবি পটিয়ার কর্মকর্তা-কর্মচারী-প্রকৌশলীদের প্রত্যক্ষ মদদে পটিয়ার বিভিন্ন এলাকা তার্গেট করে গ্রাহকদের মনগড়া বিল প্রদানপূর্বক তা মিটমাটে মোটা অংকের টাকা দাবি করে এই দালাল চক্রটি। কোন কারণ ছাড়াই মিটার খুলে নেয়া, সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা, পুনরায় সংযোগের জন্য বিপুল অংকের টাকা দাবি করা, টাকা না দিলে অবৈধভাবে মামলা দায়েরের হুমকি প্রদান করে জিম্মি করে বেড়াচ্ছে সাধারণ গ্রাহকদের। 

এছাড়াও ঘুষ ছাড়া মেলে না নতুন সংযোগ, মেরামত হয় না বিদ্যুৎলাইনের ত্রুটি। নতুন সংযোগ নিতে হলে/এনালগের পরিবর্তে ডিজিটাল মিটার নিতে হলে পিডিবি পটিয়া অফিসের সামনে অবস্থিত দালাল মনছুরের মালিকানাধীন ‘সামি এন্টারপ্রাইজ’ থেকে দ্বিগুণ মূল্যে মিটার কিনতে বাধ্য করা হয় গ্রাহকদের, অন্যথায় সংযোগ মিলে না। সংযোগ নিতে দীর্ঘসূত্রিতা, ঠিকাদারের চাঁদাবাজি, সিস্টেমের মধ্যে বিদ্যুৎ চুরি, লো-ভোল্টেজ সাপ্লাই, মিটার রিডারদের অতিরিক্ত বিল দিয়ে ভোগান্তি, দালাল দিয়ে হয়রানি, ইলেকট্রিশিয়ান ও বিদ্যুৎ পরিদর্শকদের হয়রানি, বিভিন্ন বাসাবাড়ির ওপর দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যুৎ সংযোগ থাকায় প্রাণহানির ঘটনাসহ বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ তো রয়েছেই।

দালাল গ্রুপের সমন্বয়ক মনছুরের নামে ইতিমধ্যে অনেক অভিযোগ সংশ্লিষ্ট বিভাগে জমা রয়েছে, তা সত্ত্বেও পিডিবির উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে নীরব। সাধারণ গ্রাহকদের কাছ থেকে অবৈধভাবে টাকা হাতিয়ে নিয়ে এসব দালালরা বনে গেছে কোটি কোটি টাকা মূল্যের গাড়ি-বাড়ির মালিক। পটিয়া বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী-প্রকৌশলীদের অনিয়ম-দুর্নীতি নিয়ে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে দফায় দফায় অভিযোগ জানালেও সুরাহা হয় নি কোনকিছুরই। 

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে, পটিয়া বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের (পিডিবি) কর্মকর্তাদের কাছ থেকে এর কোন সদুত্তর পাওয়া যায়নি।

পটিয়ার সাধারণ গ্রাহকরা অবিলম্বে পটিয়া বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের (পিডিবি) কর্মকর্তা-কর্মচারী-দালালদের অনিয়ম-দুর্নীতি রোধকল্পে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়াসহ গ্রাহক হয়রানী রোধের আবেদন জানিয়েছেন।
ভোলায় মহানবী (সাঃ) এর অবমাননা ও তৌহিদি জনতার উপর গুলি চালিয়ে হত্যার প্রতিবাদে পটিয়ায় বিক্ষোভ; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya; ভোলা; বোরহানউদ্দিন; বরিশাল
ভোলায় মহানবী (সাঃ) এর অবমাননা ও তৌহিদি জনতার উপর গুলি চালিয়ে হত্যার প্রতিবাদে পটিয়ায় বিক্ষোভ

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ ভোলায় হিন্দু ধর্মালম্বী এক যুবকের ফেসবুক আইডি থেকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর অবমাননা ও তৌহিদির জনতার বিক্ষোভে পুলিশের গুলি চালিয়ে হত্যার প্রতিবাদে সারাদেশের ন্যায় পটিয়ায়ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার (২২ অক্টোবর) পটিয়ার সর্বস্তরের তৌহিদি জনতার অংশগ্রহণে এক বিশাল মিছিল পটিয়া সদরের বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে।

এ সময় পটিয়া থানার মোড়স্থ হিন্দু ধর্মালম্বীদের উপাসনালয় গৌরাঙ্গ নিকেতন ও মুন্সেফ বাজার কালী বাড়ি মন্দিরের নিরাপত্তা দেয় মাদ্রাসা ছাত্ররা।

পটিয়া মুন্সেফ বাজারস্থ হিন্দু ধর্মালম্বীদের উপাসনালয় কালী বাড়ি মন্দিরের নিরাপত্তায় মাদ্রাসা ছাত্ররা
পটিয়া থানার মোড়স্থ হিন্দু ধর্মালম্বীদের উপাসনালয় গৌরাঙ্গ নিকেতনের নিরাপত্তায় মাদ্রাসা ছাত্ররা

উল্লেখ্য, শনিবার (১৯ অক্টোবর) ভোলার বোরহানউদ্দিন এলাকার বিকাশ চন্দ্র শুভ নামে হিন্দু ধর্মালম্বী এক যুবক নিজ ফেসবুক আইডি থেকে কয়েকজনের সঙ্গে মেসেঞ্জারে আল্লাহ-রাসূল (সাঃ) কে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে ইসলাম ধর্মের অবমাননা করে। এক পর্যায়ে ওই মন্তব্যের স্ক্রিনশট নিয়ে কয়েকজন এ অবমাননার প্রতিবাদ করে। পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে প্রতিবাদের ঝড় উঠে।

এ অবস্থায় অবমাননাকারী বিপ্লব চন্দ্র শুভ তার আইডি হ্যাক হয়েছে মর্মে থানায় এসে জিডি করতে আসলে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে থানায় রাখে। ওই ঘটনার প্রতিবাদে রোববার (২০ অক্টোবর) ভোলার বোরহানউদ্দিন হাইস্কুল মাঠে তৌহিদি জনতা এক বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ফেসবুকে মহানবীকে (সাঃ) নিয়ে কটুক্তি করার প্রতিবাদে রোববার বেলা ১১টায় বোরহানউদ্দিন হাইস্কুল মাঠে পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এতে অংশ নিতে উপজেলার প্রত্যেক ইউনিয়ন থেকে কয়েক হাজার লোক একত্রিত হয়ে ‘নবী অবমাননা’ ও ‘আল্লাহকে নিয়ে কটুক্তিকারীর ফাঁসি চাই’- স্লোগান দিয়ে সমাবেশস্থলে আসেন। কিন্তু সমাবেশ শুরুর আগেই তা শেষ করতে তাগাদা দেয় পুলিশ। একপর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে উভয়পক্ষ। বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশ বাধা দেয়। বাধা দেয়ার এক পর্যায়ে পুলিশের সাথে তৌহিদি জনতার সংঘর্ষ শুরু হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গুলি চালায়, এতে ৪ জন নিহত সহ আহত হয় শতাধিক।

বুয়েটছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদ ও দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে পটিয়ায় মানববন্ধন, ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক বিভাগের ছাত্র আবরার ফাহাদকে নৃশংসতম হত্যার তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন, হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদানের দাবিতে পটিয়ায় আজ বৃহষ্পতিবার (১০ অক্টোবর) এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
উক্ত প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানবন্ধনে অংশগ্রহণ করে পটিয়ার সর্বস্তরের সাধারণ ছাত্রসমাজ ও সাধারণ জনগণ।

সমাবেশে উপস্থিতিরা আবরার ফাহাদের হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবিসহ ৩ দফা দাবি উত্থাপন করে প্রধানমন্ত্রী বরাবর পটিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করে।

সাধারণ শিক্ষার্থীদের ৩ দফা দাবিঃ- 
১। বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে নির্মমভাবে হত্যাকারী ও মদতদাতাদের দৃষ্টান্তমূলক সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি দিতে হবে।
২। বাংলাদেশের সকল ছাত্রছাত্রীদের মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও শিক্ষাজীবনসহ জীবনের নিরাপত্তা প্রদান করতে হবে।,
৩। ছাত্রবীর শহীদ আবরারের মতের পক্ষে ছাত্র ও জনতার সাধারণ আকাঙ্খা অনুযায়ী বাংলাদেশের স্বার্থবিরোধী সকল চুক্তি বাতিল করতে হবে।

মধ্যরাতে পটিয়া বাইপাসে ফের দূর্ঘটনা, ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া বাইপাস সড়কে ফের যাত্রীবাহী একটি বাস সড়কের আইল্যান্ডে উঠে গিয়ে দুর্ঘটনার সম্মুখীন হয়েছে। 

সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে পটিয়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ চালায়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দূর্ঘটনা কবলিত শ্যামলী পরিবনের বাসটির বেশ কয়েকজন যাত্রী আহত হয়েছেন বলে জানান ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মকর্তারা। 

পটিয়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ফায়ার লিডার মোঃ গিয়াস উদ্দিন জানান, সম্প্রতি যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়া পটিয়া বাইপাস সড়কের আনোয়ারা রোডের মাথায় আজ রাত ২টার দিকে কক্সবাজার থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আইল্যান্ডের উপর উঠে পড়ে। এর ফলে বাসের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়। খবর পেয়ে পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম উদ্ধার তৎপরতা চালায়। দুর্ঘটনায় আহতদের হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

পটিয়া বাইপাস : পথচারীকে বাঁচাতে বাস উল্টে খাদে; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ পটিয়া বাইপাস সড়কের ইন্দ্রপুল অভিমুখে এক পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে সৌদিয়া পরিবহনের একটি বাস উল্টে সড়কের পাশের ধানক্ষেতে পড়ে যায়।

পটিয়ার বাইপাস সড়কের ইন্দ্রপুল এলাকায় শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহত মৌলভি মোহাম্মদ শামসু (৫৫) চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদ এলাকার বিপণি বিতান ‘লাকি প্লাজা’র মেহেদি স্টোর নামের একটি দোকানের মালিক। তিনি সাতকানিয়ার বাসিন্দা। 

ফায়ার সার্ভিসের পটিয়া স্টেশনের স্টেশন অফিসার সৌমেন বড়ুয়া জানান, সৌদিয়া পরিবহনের বাসটি দ্রুতগতিতে চট্টগ্রাম নগরীর দিকে আসছিল। পটিয়া বাইপাস সড়কের ইন্দ্রপুল এলাকায় একজন পথচারী হঠাৎ সড়কে উঠে পড়ে। এসময় ওই পথচারীকে বাঁচাতে জোরে ব্রেক কষে বাসের চালক। এতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি পাশের ধানক্ষেতে উল্টে আছড়ে পড়ে। বাসে থাকা ব্যবসায়ী মৌলভি মোহাম্মদ শামসু ঘটনাস্থলেই মারা যান বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা। 

পটিয়া বাইপাস : পথচারীকে বাঁচাতে বাস উল্টে খাদে; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশের উদ্ধারকারী টিম আহত ১৭ জনকে বাস থেকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠিয়েছে ।

পটিয়ায় স্কুলছাত্রী অপহরণের ৮ দিন পার; উদ্ধারে ব্যর্থ পুলিশ; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ পটিয়ায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রী অপহরণের ৮ দিন পার হলেও এখনো উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। সেই সাথে হদিস পাওয়া যায়নি অপহরণকারীর।

পুলিশ জানায়, অপহরণকৃত স্কুলছাত্রীর অভিভাবকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ১৭ জুলাই অপহরণের এ ঘটনায় সহযোগীতার অভিযোগে অপহরকারীর মা হাজেরা খাতুন (৫০)’কে ঘটনার রাতেই তারা গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছেন। অপহরণকারী গাড়ি চালক করিম ড্রাইভার (৩০) পটিয়া পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডস্থ কাগজীপাড়ার বাসিন্দা মৃত নুরুল ইসলামের পুত্র। 

মামলার বাদী অভিযোগ করেন, অপহরণের ৮ দিন পরও ভিকটিমকে উদ্ধার এবং বাদীকে সহযোগীতা করছে না এ ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা। 
সূত্র জানা যায়, খলিলুর রহমান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এ ছাত্রী প্রতিদিনের মত গত ১৭ জুলাই স্কুলে যাওয়ার পথে হঠাৎ করিম ড্রাইভার মক্কা ভিলা এলাকা থেকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। ঘটনাটি সাথে সাথে জানাজানি হলে স্কুলের প্রধান শিক্ষক বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে পটিয়া থানা পুলিশকে লিখিতভাবে জানান। পরবর্তীতে ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে অপহরণকারীর বিরুদ্ধে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করে। বাদীর পিতা অভিযোগ করেন, থানার সংশ্লিষ্ট তদন্তকারী কর্মকর্তা উদ্ধার কাজে গাফিলতি করছে। 
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে, পটিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বোরহান উদ্দিন জানান, স্কুল ছাত্রী অপহরণ করার দায়ে থানায় একটি মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। ইতিমধ্যে অপহরণে প্রত্যক্ষ সহযোগীর অভিযোগে গাড়ি চালকের মাকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং স্কুল ছাত্রী উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

পাহাড়ী ঢলে পটিয়া উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya
ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ পাহাড়ী ঢল ও টানা বর্ষণে পটিয়া উপজেলার ১৭ ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। প্লাবনে ভেসে গেছে বসতবাড়িসহ প্রায় দুশতাধিক পুকুরের মাছ। রোববার মধ্যরাত থেকে শুরু হওয়া টানা বৃষ্টির পানি ও পাহাড়ি ঢলে উপজেলার নিম্নাঞ্চলগুলো প্লাবিত হয়েছে। এ প্লাবণের ফলে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে উপজেলার কেলিশহর, হাইদগাঁও, কচুয়াই, খরনা, ভাটিখাইন, ছনহরা, ধলঘাট, হাবিলাসদ্বীপ, জিরি, কুসুমপুরা, আশিয়া, কোলাগাঁও ছাড়াও পৌরসভার কয়েকটি ওয়ার্ড। 
প্রবল বৃষ্টির কারণে উপজেলার অধিকাংশ স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসাগুলোকে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। 

টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের স্রোতে উপজেলার কেলিশহর ইউনিয়নের অনেক বসতঘর ভেসে গিয়েছে। পানিতে আটকা পড়েছেন অনেকে। পানিতে আটকা পড়াদের ইতিমধ্যে উদ্ধার করা হয়েছে।
এদিকে সঠিক সময়ে বৃষ্টির অভাবে কৃষকরা শুরু করতে পারেনি আমন ধানের চাষাবাদ। তবে অনেক কৃষক আমন চাষাবাদের বীজ রোপণ করলেও অতি বৃষ্টির ফলে বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে।
কচুয়াই ইউনিয়নাধীন শ্রীমাই খালের বেড়িবাঁধ ভেঙে পাহাড়ি ঢলের পানিতে প্লাবিত হয়েছে লোকালয়। বেড়িবাঁধের ভাঙনের ফলে ভাটিখাইন, ছনহরা ও কচুয়াই ইউনিয়নের কয়েকটি এলাকার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। 

বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখে যায়, টানা চারদিনের ভারী বর্ষণে উপজেলার ১৭ ইউনিয়ন ও পৌরসভার নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এরিমধ্যে পটিয়া পৌর কর্তৃপক্ষের অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থার কারণে বিভিন্ন এলাকায় পাহাড়ি ঢলে ও বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি করেছে। বুধবার সকাল থেকেই অনেকটা গৃহবন্দি হয়েছে পড়েছেন সাধারণ জনগণ। পুকুর থেকে ভেসে যাওয়া মাছ ধরতে বিভিন্ন এলাকার লোকজন প্রতিযোগিতায় মেতেছেন। উপজেলা ও পৌর এলাকার অনন্ত দুশতাধিক পুকুরের বিভিন্ন প্রজাতির মাছ পানিতে ভেসে গেছে। 

এদিকে, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরকান মহাসড়কের পটিয়া পোস্ট অফিস মোড়সহ বিভিন্ন এলাকায় পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি করেছে। শ্রীমাই খালের ভাটিখাইন এলাকার দুইটি স্পটে বেড়িবাঁধ ভেঙে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। 
পাহাড়ী ঢলে পটিয়া উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি; পাহাড়ী ঢলে পটিয়া উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি; শ্রীমাই খালের ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শনে উপজেলা প্রশাসন; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya
ছবি: পাহাড়ী ঢলে ক্ষতিগ্রস্থ শ্রীমাই এলাকা পরিদর্শনে উপজেলা প্রশাসন | Voice of Patiya
পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান ভয়েস অব পটিয়া’কে বলেন, ‘টানা বর্ষণে পটিয়া উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। যেসব এলাকায় ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা সরেজমিনে পরিদর্শনপূর্বক ক্ষতিগ্রস্তদের নামের তালিকা সংগ্রহ করার কাজ চলছে।’ 
কচুয়াই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম ইনজামুল হক জসিম ভয়েস অব পটিয়া’কে বলেন, ‘শ্রীমাই খালের বেড়িবাঁধ ভেঙে যাওয়ায় পুরো কচুয়াই ইউনিয়ন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। লোকজন আতংকের মধ্যে রয়েছে। যে কোনো মুহুর্তে বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।’  

এদিকে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলো পরিদর্শন করেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বিশু পাইকসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংস্থার উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।  প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলের কারণে ক্ষতিগ্রস্থ এসব এলাকা পরির্দশন করে ক্ষতিগ্রস্থদের নামের তালিকা তৈরি করার নির্দেশনা দেন। ক্ষতিগ্রস্তদের সরকারীভাবে সহযোগীতা প্রদান করা হবে বলে তারা আশ্বস্ত করেন।
পাহাড়ী ঢলে পটিয়া উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি; ত্রাণ বিতরণ;ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; শ্রীমাই খাল; শ্রীমতি খাল; Voice of Patiya
ছবি: পাহাড়ী ঢলে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের ত্রাণ বিতরণ | Voice of Patiya
ইতিমধ্যে ভাটিখাইন ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে জেলা ত্রাণ ও পূনর্বাসন বিভাগ কর্তৃক বরাদ্দকৃত ত্রাণের আওতায় উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে চাল ও শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়। 

প্রবল বর্ষণে পটিয়া সদরে জলজট; চরম দূর্ভোগে বিপর্যস্ত জনজীবন; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; Voice of Patiya

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ টানা বৃষ্টিতে পটিয়া সদরে সৃষ্টি হয়েছে জলজট। টানা তিন দিনের প্রবল বর্ষণের ফলে পটিয়ার অধিকাংশ এলাকায় পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। চরম দূর্ভোগে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। বিশেষ করে পটিয়া পোষ্ট অফিস মোড়, ছবুর রোড, মিশন রোড, স্টেশন রোড, ক্লাব রোড, থানার মোড়, ডাকবাংলো রোড, জামেয়া রোড, আমির ভান্ডার রোড সহ পটিয়া পৌর সদরের বেশ কয়েকটি প্রধান সড়ক পানিতে ডুবে গেছে। এর ফলে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষদের। 
স্থানীয়দের অভিযোগ, ‘পটিয়া পৌর কর্তৃপক্ষের অপর্যাপ্ত ও অপরিকল্পিত ড্রেন নির্মাণের ফলে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। ব্যবসায়ীরা প্রতিনিয়ত পলিথিনসহ ময়লা-আবর্জনা সরাসরি ড্রেনের পানি নিষ্কাশনের পথে ফেলার কারণে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা।’

পটিয়ার বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বললে তারা ভয়েস অব পটিয়া’কে জানান, ‘গত ৫ বছর আগেও পটিয়া পৌরসভার প্রধান সড়কগুলোতে এই ধরনের জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়নি; পৌর কর্তৃপক্ষের অপরিকল্পিত ড্রেন নির্মাণ, ড্রেন দিয়ে পানি নিষ্কাশন না হওয়ার কারণে পটিয়া পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টির মূল কারণ। যার ফলে দৈনন্দিন চলাফেরা, ব্যবসা-বাণিজ্য করতে আমাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। হিমশিম থেকে রক্ষা পেতে সঠিক পরিকল্পনার বিকল্প নেই বলে মনে করছেন একাধিক ব্যবসায়ী।’
স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা জানান, ‘সামান্য বৃষ্টিতেই পটিয়ার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়; যার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যেতে-আসতে আমাদের চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।’

এদিকে সরেজমিনে পরিদর্শনে দেখা যায়, পৌর কর্তৃপক্ষের অপরিকল্পিতভাবে ড্রেন নির্মাণের ফলে রাস্তায় জমে থাকা পানি সহজে নিষ্কাশনে বাধা পাচ্ছে। তাছাড়া বিগত ২ বছর যাবত ধীরগতিতে ড্রেন নির্মাণ এর একটি বড় কারণ।

পৌর কর্তৃপক্ষের সাথে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পৌর মেয়র হারুনুর রশিদ জানান, ‘উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বৃষ্টির পানি সরাসরি পটিয়া পৌর এলাকার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়, যার ফলে এ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া টানা তিন দিনের বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলের ফলে পৌর সদরের নিম্নাঞ্চলগুলো তলিয়ে গেছে। বৃষ্টি কমার সাথে সাথে পানি নেমে যাবে। এছাড়া পৌর সদরের নির্মানাধীন ড্রেনগুলোর কাজ শেষ হলে অচিরেই পৌরবাসী এই জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি পাবে।’

এদিকে উপজেলার কচুয়াই ইউনিয়নের শ্রীমাই খালের বাঁধ ভেঙে পানিতে তলিয়ে গেছে বিস্তীর্ণ এলাকা। ডুবে গেছে শখানেক পুকুর। কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে মৎস্য ব্যবসায়ীদের।

কোরবানি সামনে রেখে পটিয়ায় গরুচোরদের উৎপাত, খামারিরা নির্ঘুম; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; Voice of Patiya

ভয়েস অব পটিয়া-বিশেষ প্রতিনিধিঃ কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে পটিয়ায় সক্রিয় হয়ে উঠেছে গরু চোরচক্র। উপজেলা-পৌরসদরের বিভিন্ন এলাকায় প্রায়ই ঘটছে গরু চুরির ঘটনা। পটিয়া থানা পুলিশ সূত্র জানায়, গত একমাসে বিভিন্ন কৌশলে গরু চুরির ঘটনায় দশ চোর গ্রেপ্তার ও চারটি গরু উদ্ধার করেছে পুলিশ। এছাড়া মালিক খুঁজে না পাওয়ায় বর্তমানে পটিয়া থানায় একটি গরু ও একটি মহিষ নিয়ে বিপাকে পড়েছে পুলিশ।

জানা যায়, পটিয়া উপজেলার জিরি ইউনিয়নের আল ওয়ালী এগ্রো ফার্ম থেকে ছয়টি গরু চুরির পর থেকে খামারিরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। গরু চোরের ভয়ে খামারি ও এলাকার লোকজন রাতে বিভিন্ন এলাকায় পাহারা দিচ্ছেন। পাশাপাশি গরু চোরদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। সম্প্রতি পুলিশের হাতে আটক হওয়া আল ওয়ালী খামারের নৈশপ্রহরীর কাছ থেকে গরু চোরদের সম্পর্কে পাওয়া গেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। গরু চুরির মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন খোদ গরু ব্যবসায়ীর পুত্র তৌহিদ। 

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরাকান মহাসড়কটি পটিয়া উপজেলা সদর দিয়ে যাওয়ার কারণে চোরেরা গরু চুরি করে তা নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যেতে সক্ষম হচ্ছে। আসন্ন কোরবানি ঈদে বিক্রি করার জন্য পটিয়ার জিরি ইউনিয়নে আল ওয়ালী খামার ২৩টি গরু মোটাতাজা করে। তারা আনোয়ারা উপজেলার বরুমছড়া এলাকার গরু ব্যবসায়ী আবদুর রাজ্জাকের কাছ থেকে নগদ ও বাকিতে গত ২৫ মে ১৪টি গরু ১৬লাখ ৬০হাজার টাকায় মৌখিক চুক্তিতে ক্রয় করেন। এর মধ্যে ১০ লাখ ৫ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। বাকি টাকার মধ্যে গত ঈদ-উল-ফিতরের আগের দিন আরো সাড়ে তিন লাখ টাকা পরিশোধ করার জন্য চাপ দেয়। কিন্তু হঠাৎ করে ঈদের পর দিন রাতেই খামারের ১২ লাখ টাকার মূল্যের ছয়টি ষাঁড় গরু চুরি হয়। এ বিষয়ে খামারিরা পটিয়া থানায় অভিযোগ করার পর পুলিশ নৈশপ্রহরী মো. ইসহাককে আটক করে। নৈশপ্রহরী জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে স্বীকার করে রাতে ছয়টি গরু আবদুর রাজ্জাকের পুত্র তৌহিদ অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে গাড়ি করে নিয়ে গেছে। বর্তমানে নৈশপ্রহরী ইসহাক ও গরু ব্যবসায়ী আবদুর রাজ্জাকের পুত্র তৌহিদ জেলও খেটেছে। 

খামারি আবদুর রহমান আনোয়ার বলেন, ‘হঠাৎ করে পটিয়ায় গরু চুরি বেড়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত খামারিরা থানায় লিখিত অভিযোগ করলেও ১৫ দিনেও তাদের গরু উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বোরহান উদ্দিন ভয়েস অব পটিয়া’কে জানান, ‘গরু চোরদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে। ইতোমধ্যে একজন নৈশপ্রহরী, গরু ব্যবসায়ীর পুত্রসহ বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বর্তমানে থানায় একটি গরু ও একটি মহিষ রয়েছে। মালিক খুঁজে না পাওয়ায় পুলিশ এসব গরু ও মহিষ নিয়ে বিপাকে পড়েছে। চুরি বন্ধে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন ওসি বোরহান উদ্দিন।’
পটিয়ায় মেয়াদোত্তীর্ণ ও ভেজাল পণ্য বিক্রয় করার দায়ে জরিমানা;  ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; Voice of Patiya

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ পটিয়ায় মেয়াদোত্তীর্ণ, ভেজাল পণ্য বিক্রয় ও পণ্যের মূল্য তালিকা না টাঙানোর দায়ে কয়েকজন দোকানীকে ৫০,০০০/- টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গতকাল রবিবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পটিয়া পৌর সদরে কামাল বাজারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাব্বির রহমান সানির নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এতে মেয়াদোত্তীর্ণ তীর, ওকে, সান ব্র্যান্ডের সয়াবিন তেল, ভেজাল ঘি, আচার ইত্যাদি বিক্রয় ও মূল্যতালিকা না টাঙানোর দায়ে বিসমিল্লাহ ষ্টোরকে ২০,০০০/- টাকা, দেলোয়ার ষ্টোরকে ১০,০০০/- টাকা ও বাদল ষ্টোরকে ৫,০০০/- টাকা সহ মোট ৫০,০০০/- টাকা জরিমানা করেন। 

সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাব্বির রহমান সানি জানান, দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে অনেক দোকানী দোকান বন্ধ করে সটকে পড়েন। ব্যবসায়ীরা ২০১৭ সালে মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে এমন পণ্যও দোকানে রেখেছেন। আবার ট্যাংকের নকল টাংক নাম দিয়েও পণ্য বিক্রয়ের জন্য পসরা সাজিয়েছে, যা মানব দেহের খুবই ক্ষতিকর। তাদেরকে মূল্য তালিকা টাঙানোর পাশাপাশি ভেজাল পণ্য বিক্রি না করতে সর্তক করা হয়েছে। এরপরেও ব্যবসায়ীরা সঠিক পথে না আসলে ভোক্তা অধিকার আইনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

পটিয়ায় তেলবাহী ট্রাকের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র আহত; দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; Voice of Patiya

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ পটিয়া পৌর সদরে অবস্থিত দক্ষিণ চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন বিদ্যাপীঠ আবদুস সোবহান রাহাত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই ছাত্রকে ধাক্কা দিয়ে গুরুতর আহত করেছে পদ্মা অয়েলের তেলবাহী একটি ট্রাক (চট্টমেট্টো-ঢ-০১-০০১৮)। 

মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আহতরা হচ্ছে দুই সহোদর ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র মোঃ হানিফ ও ৯ম শ্রেণীর ছাত্র মোঃ রিয়াদ। তাদের বাড়ি উপজেলার পশ্চিম হাইদগাঁও গ্রামে।
এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে শিক্ষার্থীরা চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া থানার সম্মুখ এলাকা হতে পটিয়া সরকারী কলেজ গেইট পর্যন্ত সড়কে অবস্থান নিয়ে প্রায় ১ ঘন্টা সড়ক অবরোধ করে। অবরোধে সড়কের উভয় পাশ্বে যানযটের সৃষ্টি হয়। পরে আবদুস সোবহান রাহাত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কক্ষে পটিয়া থানা প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ এক ত্রি-পক্ষীয় বৈঠকে ছাত্রদের দাবি মোতাবেক শীঘ্রই স্কুল গেইট সংলগ্ন মহাসড়কে গতিরোধক, স্কুল চলাকালীন ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েন এবং আহতদের দ্রুত সুচিকিৎসার বিষয়ে প্রশাসন আশ্বাস দিলে ছাত্ররা সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করে।  এতে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব শরিফুল ইসলাম, পটিয়া থানার এস.আই কামাল উদ্দিন, ছাত্রদের পক্ষে শহীদুল ইসলামসহ প্রমুখ। 

এ ব্যাপারে আহত শিক্ষার্থীদের পক্ষে শহীদুল ইসলাম বলেন, ’বর্তমানে আহত আমার দুই মামাতো ভাইয়ের অবস্থা খুবই আশংকাজনক। তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দ্রুত অপারেশনের জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’ 

বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শাহাদাত হোসেন জানান, ’আহত দুই শিক্ষার্থী সহোদর। তারা বিদ্যালয়ের টিফিন ছুটির সময় বের হলে তেলবাহী একটি ট্রাক তাদেরকে ধাক্কা দেয়। তাদেরকে প্রথমে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে চমেকে রেফার্ড করেন কর্তব্যরত চিকিৎসকরা। তাদের পায়ে মারত্মক জখম হয়েছে। এখন তাদের সুস্থতা একমাত্র আল্লাহর হাতে।’

পটিয়া শিশুপার্ক ভেঙে সড়ক প্রশস্তকরণ; অধিগ্রহণ ছাড়া ব্যক্তিমালিকানাধীন সাধারণ স্থাপনা ভাঙচুর; পটিয়া; চট্টগ্রাম; Patiya; Chittagong; Chattogram
পটিয়া শিশুপার্ক ভেঙে সড়ক প্রশস্তকরণ; অধিগ্রহণ ছাড়া ব্যক্তিমালিকানাধীন সাধারণ স্থাপনা ভাঙচুর 

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ জেলা সড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্থ উন্নীতকরণ (চট্টগ্রাম অঞ্চল) প্রকল্পের আওতায় পটিয়া ডাকবাংলোর মোড় হতে হাইদগাঁও পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ প্রকল্প উদ্বোধনের পরমুহুর্তে কোন ধরনের পূর্বনোটিশ, ভূমি অধিগ্রহণ ছাড়াই চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের পটিয়া শিশুপার্কের এক-তৃতীয়াংশ স্থাপনা বাউন্ডারীওয়ালসহ এবং শিশু পার্ক সংলগ্ন বিভিন্ন সাধারণ স্থাপনা বুলডোজাড় দিয়ে গুঁড়িয়ে দিয়েছে সড়ক ও জনপদ বিভাগ। 

সড়ক ও জনপদ বিভাগ সূত্র জানায়, জেলা সড়ক প্রশস্তকরণ প্রকল্পের আওতায় ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে পটিয়া ডাকবাংলোর মোড় হতে হাইদগাঁও পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার সড়ক প্রশস্তকরণের একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়। সে লক্ষ্যে শুক্রবার (০৫ এপ্রিল) দুপুরে স্থানীয় সাংসদ হুইপ সামশুল হক চৌধুরী এ প্রকল্প কাজের উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পটিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়াম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান’সহ অন্যান্যরা।
এর পরপরি কোনধরনের পূর্বনোটিশ, ভূমি অধিগ্রহণ ছাড়া সড়ক ও জনপদ বিভাগ আকস্মিকভাবে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের মালিকানাধীন পটিয়া শিশু পার্কের বাউন্ডারীওয়ালসহ স্থানীয় জনগণের মালিকানাধীন বিভিন্ন সাধারণ স্থাপনা, দোকানপাট, কিন্ডারগার্টেন স্কুল বুলডোজাড় দিয়ে গুঁড়িয়ে দেয়। দুপুর ২টা হতে রাত ৯টা পর্যন্ত এ ভাঙনযজ্ঞ চলে। 

এদিকে বিনানোটিশে অবৈধভাবে বিভিন্ন স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়ায় ক্ষতিগ্রস্থ স্থাপনার মালিকদের সাথে সড়ক ও জনপদ বিভাগের কর্মীদের ধাক্কাধাক্কি-বাদানুবাদ হয়। কয়েকজন সাংবাদিক স্থাপনা গুঁড়ানোর চিত্র ধারণ করতে গেলে তাদের মোবাইল ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। 

এলাকাবাসীদের সাথে কথা বললে তারা জানায়, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তাদেরকে কোন ধরনের পূর্বনোটিশ, ভূমি অধিগ্রহণ ছাড়া তাদের মালিকানাধীন বিভিন্ন স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয়। এতে তারা কয়েক কোটি টাকার ক্ষতির সম্মুখীন হন। তারা এর প্রতিবাদ জানান। 

এ ব্যাপারে উপস্থিত সড়ক ও জনপদ সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলতে চাইলে, তারা এ সম্পর্কে জানাতে অস্বীকৃতি জানান। রিপোর্টারের সাথে অসাদচরণ করেন। 

জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান (পটিয়া জোন সদস্য) দেবব্রত দাশের সাথে মোবাইলে কয়েকদফা যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি কল কেটে দেন। এ রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়া পর্যন্ত এ ব্যাপারে জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষের আনুষ্ঠানিক কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
পটিয়া বাইপাসে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ১; আহত ২; ভয়েস অব পটিয়া; পটিয়া; চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা; চট্টগ্রাম; চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক; ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প, পটিয়া লবণ শিল্প, পটিয়া বাইপাস, চাঁনখালী খাল, কক্সবাজার; Voice of Patiya

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া বাইপাস এলাকায় শ্যামলী পরিবহনের এক বাসের ধাক্কায় রহিম উদ্দিন (৩৮) নামে সিএনজি অটোরিকশার এক যাত্রী নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন দুই যাত্রী। মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) সকাল ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত রহিম উদ্দিন পটিয়া উপজেলার ভাটিখাইন এলাকার মোঃ নূরনবীর ছেলে। আহত দুই যাত্রী হলেন- ভাটিখাইন এলাকার রফিকুল আলমের ছেলে মোঃ শুভ (১৭) ও একই এলাকার মোঃ মনিরুজ্জামানের ছেলে মোঃ বাদশা মিয়া (৪০)। 
চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক মোঃ আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, পটিয়া বাইপাস এলাকায় শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস সিএনজি অটোরিকশাকে ধাক্কা দিলে একজন নিহতসহ তিনজন গুরুতর আহত হন। তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রহিম উদ্দিনকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত দুইজন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।



লবণ পানিতে পিচ্ছিল চট্টগ্রাম-পটিয়া-কক্সবাজার মহাসড়ক যেন মৃত্যুফাঁদ; পটিয়া; চট্টগ্রাম; Patiya; Chittagong; Chattogram
লবণ পানিতে পিচ্ছিল চট্টগ্রাম-পটিয়া-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া ইন্দ্রপুল শিল্প এলাকা যেন মৃত্যুফাঁদ

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ লবণ পানিতে মৃত্যুফাঁদে পরিণত হয়েছে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া অংশ। প্রতিদিন কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা পানিযুক্ত অপরিশোধিত লবণ আনলোড করা হয় পটিয়ার ইন্দ্রপুল শিল্প এলাকায়। যার ফলে অপরিশোধিত লবণ থেকে ঝরে পড়া পানি পিচ্ছিল করে তুলছে ইন্দ্রপুল লবণ শিল্প এলাকা সংলগ্ন চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক অংশের উভয় পাশের প্রায় পাঁচ কিলোমিটার সড়ক। এতে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা, ঝরছে প্রাণ। গত এক বছরে প্রায় ১০ জনের প্রাণহানি ঘটেছে, আহত হয়েছে শতাধিক মানুষ। যাদের বেশিরভাগই ছিল মোটরসাইকেল আরোহী। 

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, লবণ থেকে ঝরে পড়া পানিতে এত দুর্ঘটনা ঘটলেও তা বন্ধে এখনো পর্যন্ত প্রশাসন থেকে তেমন কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে লক্ষ্য করা যায় নি। 

অপরদিকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে পলিথিন দিয়ে লবণ পরিবহনের জন্য বার বার অবহিত করা হলেও তাতে কর্ণপাত করছে না লবণ ব্যবসায়ীরা। অনেক লবণ পরিবহনকারী ট্রাকে পলিথিন ব্যবহার করলেও ইন্দ্রপুল এলাকায় সড়কের উপর লবণ আনলোড করার সময় লবণাক্ত পানিতে সয়লাব হয়ে যায় মহাসড়ক। 

এদিকে পানিযুক্ত লবণ পরিবহনের ফলে মহাসড়ক ক্ষতিগ্রস্ত এবং পিচ্ছিল হয়ে দুর্ঘটনা বাড়ার কারণে গত জানুয়ারি মাসে চট্টগ্রাম জেলার উন্নয়ন সমন্বয় সভায় সড়ক ও জনপথ বিভাগ থেকে পানিযুক্ত লবণ পরিবহনের নেতিবাচক দিকগুলো তুলে ধরা হয়। সভায় সিদ্ধান্ত হয়, বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে লবণ ব্যবসায়ীদের নিয়ে মতবিনিময় করা হবে। 

এদিকে মহাসড়কের পাশে পানিযুক্ত লবণ আনলোড বন্ধে মিল মালিকদের নির্দেশনা দিয়েছে পটিয়া লবণ মিল মালিক সমিতি। তা সত্বেও সড়কের উপর লবণ আনলোড বন্ধ করেনি কেউ। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পটিয়া লবণ শিল্প এলাকায় চাঁনখালী খাল দিয়ে লবণ বোঝাই ট্রলার আসা কমে গেলে ট্রাকে লবণ পরিবহন বেড়ে যায়। বিগত ১০ বছর ধরে ট্রাকে করে লবণ পরিবহন করা হলেও এতে কোন পলিথিন ব্যবহার করা হতো না। সম্প্রতি কিছু কিছু লবণ পরিবহনকারী পলিথিন ব্যবহার শুরু করলেও এতে তেমন একটা উন্নতি পরিলক্ষিত হয় নি। 

কক্সবাজার সদর, মহেশখালী, চকরিয়া ও বাঁশখালী থেকে সড়ক পথে আসা ট্রাক থেকে লবণ আনলোড করার সময় ঝরে পড়া লবণের পানিতে ইন্দ্রপুল মহাসড়ক এলাকা সয়লাব হয়ে যায়। এসব ঝরে পড়া লবণাক্ত পানির ফলে, পটিয়া থানার মোড় হতে আমজুর হাট পর্যন্ত চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের প্রায় পাঁচ কিলোমিটার সড়ক সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এতে গত এক বছরে অসংখ্য দুর্ঘটনায় ১০ জনের প্রাণহানিসহ শতাধিক লোক আহত হয়। 

এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের (দোহাজারী) নির্বাহী প্রকৌশলী জাহিদ হাসান ভয়েস অব পটিয়া’কে জানান, ‘পানিযুক্ত লবণ পরিবহন বন্ধ করতে জানুয়ারি মাসের জেলা উন্নয়ন সভায় পানিযুক্ত লবণ পরিবহনের ক্ষতিকারক দিকগুলো তুলে ধরা হয়। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসককে অনুরোধ জানানো হয়েছে।’ 
পটিয়া লবণ মিল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হক আল্লাই ভয়েস অব পটিয়া’কে বলেন, ‘মহাসড়কের উপর যারা পানিযুক্ত লবণ আনলোড করেন তাদেরকে সতর্ক করে চিঠি দেয়া হয়েছে। চিঠিতে মহাসড়কের উপর লবণ আনলোড বন্ধ করতে বলা হয়েছে। আমরা পুনরায় ওইসব মিল মালিকদের আবারো সতর্ক করব; অন্যথায় তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান ভয়েস অব পটিয়া’কে বলেন, ‘বিষয়টি অতিব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা শীঘ্রই এ ব্যাপারে লবণ মালিকদের সাথে আলোচনায় বসব। তবে যারা সড়কের পাশে লবণ আনলোড করছে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এমবিবিএস পাশ না করেও হলফনামায় পাশ উল্লেখ : তিমির বরণ চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিল | Voice of Patiya; Patiya; পটিয়া; পটিয়ার সংবাদ; পটিয়া নিউজ; উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ হলফনামায় মিথ্যা তথ্য দেয়ায় পটিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তিমির বরণ চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের আপিল বিভাগ। 
সোমবার বিকেলে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক ইয়াসমিন আক্তার তিবরিজী এ সংক্রান্ত অভিযোগের শুনানি শেষে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন। এর আগে পটিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী শাহাবউদ্দিন একই পদে প্রতিদ্বন্দ্বী তিমির বরণ চৌধুরীর শিক্ষাগত যোগ্যতার ক্ষেত্রে হলফনামায় মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন মর্মে জেলা প্রশাসনের আপিল বিভাগে অভিযোগ করেন। তিমির বরণ চৌধুরী ২০১৪ ও ২০১৯ এর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শিক্ষাগত যোগ্যতার ক্ষেত্রে দুই ধরনের তথ্যপ্রদানের পাশাপাশি ভুয়া এমবিবিএস সনদ প্রদানের করছেন মর্মে অভিযোগ জানান শাহাবউদ্দিন৷

এমবিবিএস পাশ না করেও হলফনামায় পাশ উল্লেখ : তিমির বরণ চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিল | Voice of Patiya; Patiya; পটিয়া; পটিয়ার সংবাদ; পটিয়া নিউজ; উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

হলফনামা:তিমির বরণ চৌধুরী

অনুসন্ধানে জানা যায়, উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফল জালিয়াতির দায়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ তিমির বরণ চৌধুরীর ছাত্রত্ব আজীবনের জন্য বাতিল করে। এরপর তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে ভুয়া ভর্তি হয়ে ইউএসটিসিতে বদলী হয়ে আসলেও তার জালিয়াতির বিষয়টি জানাজানি হলে ১৯৯০ সালে ইউএসটিসি থেকেও তিনি বহিস্কার হন। এ দ্বারা প্রমাণিত হয় তিনি এমবিবিএস পাশ না করেও হলফনামায় এমবিবিএস পাশ উল্লেখ করেন এবং এ সংক্রান্ত বিএমডিসির একটি জাল প্রত্যয়নপত্র সংযুক্ত করেন। 
গতকালের শুনানিতে বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় তিমির বরণ চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিল করে দেন আপিল বিভাগ। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক ইয়াসমিন আক্তার তিবরীজি প্রার্থী তিমির বরণ চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিলের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। হলফনামায় এমবিবিএস পাশ উল্লেখ করলেও এর স্বপক্ষে বৈধ কোন কাগজপত্র-সনদ দেখাতে না পারায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে বলে জানান তিনি।