ভয়েস অব পটিয়াঃ নারায়ণগঞ্জ সদরের একটি মসজিদে পাশের গ্যাস লিকেজের বিস্ফোরণ থেকে আগুনে দগ্ধ হয়ে শনিবার (০৫ সেপ্টেম্বর) দুপুর পর্যন্ত ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ মসজিদে বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৬ জনে
নারায়ণগঞ্জ মসজিদে গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ

ভয়েস অব পটিয়া-ন্যাশনাল ডেস্কঃ নারায়ণগঞ্জ সদরের একটি মসজিদে পাশের গ্যাস লিকেজের বিস্ফোরণ থেকে আগুনে দগ্ধ হয়ে শনিবার (০৫ সেপ্টেম্বর) দুপুর পর্যন্ত ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। 

শুক্রবার রাতের এই ঘটনায় অর্ধ শতাধিক অগ্নিদগ্ধদের অধিকাংশকে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছিল। সকাল ৯টা পর্যন্ত মোট ১১ জন মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে জুয়েল নামের এত শিশুর দেহের ৯৫ শতাংশ পুড়ে যায় বলে জানান বার্ন ইনস্টিটিউটের সহকারী পরিচালক ডা. হুসেইন ইমাম। 
শাহবাগ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মাহবুবুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, সকাল ১১টার দিকে মারা যান রাসেল নামে একজন। ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন বলেন, দুপুরে আরও দুজন মারা যায়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ১৬ জনে দাঁড়াল। অগ্নিদগ্ধ আরও ২৩ জন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন বলে জানান তিনি। 

লাইনের লিকেজ থেকেই গ্যাস চেম্বারে পরিণত হয় নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা বাইতুল সালাহ জামে মসজিদটি। শুক্রবার রাতে এশার নামাজের সময় বিকট শব্দে মসজিদের পর পর ছয়টি এসিই বিষ্ফোরিত হয়। বিস্ফোরণে মুহূর্তের মধ্যেই আগুনে ছড়িয়ে পড়ে চারপাশে। দগ্ধ হন মসজিদে নামাযরত অর্ধ শতাধিক মুসল্লী। বিস্ফোরণে মসজিদের সবগুলো জানালার কাচ উড়ে যায়। বিস্ফোরণে দগ্ধ মুসল্লিরা মসজিদ থেকে বাইরে ছুটে এসে রাস্তায় জমে থাকা পানিতে গড়াগড়ি খেতে শুরু করেন।

শনিবার সকালে মসজিদ পরিদর্শনে যান তিতাসের এমডি, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা। গ্যাস লিকেজের লাইন ঠিক করতে ৯ মাস আগে তিতাসকে জানানো হলেও ৫০ হাজার টাকা ঘুষ না দেয়ার কারণে কাজ হয়নি বলে দাবি মসজিদ কমিটির সভাপতির। 
নারায়ণগঞ্জ পশ্চিম তল্লা বাইতুল সালাহ জামে মসজিদের সভাপতি আব্দুল গফুর মেম্বার গণমাধ্যমকে বলেন, যখন গ্যাস লাইন লিকেজ হচ্ছে তখন সাথে সাথেই এটি মেরামত করার জন্য আমরা তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তখন তারা আমাদের কাছ থেকে এর জন্য ৫০ হাজার টাকা ঘুষ চেয়েছিল, আমরা টাকাটা দিতে পারি নাই বলে তারা লিকেজ মেরামতের ব্যাপারে কোন কর্ণপাত করেনি। যার ফলে এভাবেই লিকেজ রয়ে যায়, আর মেরামত করা হয়নি। 

তবে নিজেদের দায় এড়িয়ে এ বিষয়ে তদন্ত চলছে, কেউ দায়ী হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান তিতাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী মোহাম্মদ আল মামুন। তিনি বলেন, কমিটি এই বিষয়ে তদন্ত করবে। যদি কেউ বিষয়ে গাফিলতি করে থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে আমাদের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
এদিকে গ্যাস লিকেজের সূত্র ধরেই তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক ও তদন্ত কমিটির সদস্য সচিব নূর হাসান। তিনি বলেন, আমরা বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করছি। প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে আমরা কথা বলছি। গ্যাস লিকেজ এবং বিদ্যুৎ এর বিষয় মাথায় রেখেই আমরা তদন্ত কার্যক্রম এগিয়ে নিচ্ছি। 

ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে শনিবার কান্নায় ভেঙে পড়েন নারায়ণগঞ্জ মসজিদে বিস্ফোরণে নিহত-আহতেদের স্বজনরা।
ইনস্টিটিউটের উপ-পরিচালক ডা. ইমাম বলেন, “দগ্ধদের সবারই শ্বাসনালী পুড়ে গেছে। তাদের শরীরের কমপক্ষে ৩০ শতাংশের বেশি দগ্ধ।” 
ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, “যারা ভর্তি আছেন, তারা কেউই শঙ্কামুক্ত নন। তাদের অবস্থা অত্যন্ত খারাপ বলা যায়।” 

এদিকে আহতদের সুচিকিৎসা নিশ্চিতের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার সকালে বার্ন ইউনিটে যান নারায়ণগঞ্জের ডিসি জসিম ‍উদ্দিন। তিনি মৃতদের প্রত্যেকের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা এবং আহতদের ১০ হাজার টাকা করে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেওয়ার ঘোষণা দেন।


জাতীয়-আন্তর্জাতিক-চট্টগ্রামের সংবাদসহ পটিয়া সম্পর্কে জানতে ও জানাতে আমাদের ফেসবুক পেজের সাথে থাকুন।
Share To:

Voice of Patiya

Post A Comment:

0 comments so far,add yours