ভয়েস অব পটিয়াঃ পটিয়ায় রাতের আঁধারে নৌকায় আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া এবং বিএনপির দু’টি নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে

পটিয়ায় নৌকায় আগুন, বিএনপির নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর

ভয়েস অব পটিয়া-হামীম সরকার (বিশেষ প্রতিনিধি):- পটিয়ায় রাতের আঁধারে বাশেঁর তৈরি নৌকায় আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়ার অভিযোগ করেছে আওয়ামীলীগ সমর্থকরা। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার উত্তর হাইদগাঁও ইউনিয়নের শাহ আকবরিয়া কিন্ডার গার্ডেনের সামনে এই ঘটনা ঘটে বলে তারা জানায়। একই রাতে উপজেলার কাশিয়াইশ ইউনিয়নের বুধপুরা ও জঙ্গলখাইন ইউনিয়নের আমজুরহাট এলাকায় বিএনপির দু’টি নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নৌকায় আগুন ও বিএনপির কার্যালয় ভাঙচুরের ঘটনায় একপক্ষ আরেক পক্ষকে দায়ী করছে। 
এদিকে আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্র পাহারা দিতে লাঠি নিয়ে প্রস্তুতি নিতে বিএনপি প্রার্থীর ঘোষণাকে ফৌজদারী অপরাধ উল্লেখ করে উপজেলা আওয়ামী লীগ বলেছে ভোটের দিন ভোটার ও সাধারণ জনগণ তাদের প্রতিহত করবে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে পটিয়া উপজেলার ১৭ ইউনিয়ন ও পৌরসভা এলাকার মোড়ে মোড়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় উপজেলার বুধপুরা বাজার এলাকায় বিএনপি প্রার্থী এনামুল হক এনাম বিএনপির কার্যালয় উদ্বোধন করেন। এর ৩০ মিনিট পর স্থানীয় কিছু যুবক তা ভেঙে দেয়। রাতে উপজেলার হাইদগাঁও গ্রামে স্থানীয় আওয়ামী লীগের তৈরি ‘নৌকা’ জ্বালিয়ে দেয়ার অভিযোগ করে আওয়ামী লীগ সমর্থকরা।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশিদ ভয়েস অব পটিয়া’কে বলেন, বিএনপি নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট করার ষড়যন্ত্র করছে। লাঠি প্রস্তুতের জন্য নেতাকর্মীদের আদেশ দিয়ে ফৌজদারী অপরাধ করেছে বিএনপি ও তাদের প্রার্থী। প্রশাসনকে আগে থেকেই এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, ভোটের দিন বিএনপি ভোট কেন্দ্রে লাঠি নিয়ে এলে ভোটাররা তাদের প্রতিহত করবে। 

এদিকে পটিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম ভয়েস অব পটিয়া’কে বলেন, আওয়ামী লীগের কিছু যুবক প্রতিদিন কোন না কোন ইউনিয়নে আমাদের নির্বাচনী কার্যালয় ভেঙে দিচ্ছে। তাছাড়া বিভিন্ন এলাকায় পোস্টার ও ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে নির্বাচনের পরিবেশ বানচাল করার অপচেষ্টা করছে। এর আগেও কয়েকটি নির্বাচনী ক্যাম্প ভেঙে দেওয়া হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে বিষয়গুলো উপজেলা রিটার্নিং অফিসারকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। 
এ বিষয়ে পটিয়া থানার ওসি (তদন্ত) রেজাউল করিম মজুমদার জানান, আগুন দেয়া বা কার্যালয় ভেঙে দেয়ার কোন ঘটনায় লিখিত কোন অভিযোগ পাওয়া যায় নি। লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১২ পটিয়া আসন সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন
পটিয়া সম্পর্কে জানতে ও জানাতে আমাদের ফেসবুক পেজের সাথে থাকুন।

Share To:

Voice of Patiya

Post A Comment:

0 comments so far,add yours

Note: Only a member of this blog may post a comment.