ভয়েস অব পটিয়াঃ করোনার ভ্যাকসিন ‘বঙ্গভ্যাক্স’ উৎপাদনে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদন পেলো গ্লোব বায়োটেক

করোনার ভ্যাকসিন ‘বঙ্গভ্যাক্স’  উৎপাদনে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদন পেলো গ্লোব বায়োটেক; করোনা; করোনা ভাইরাস; করোনা ভ্যাকসিন; কোভিড-১৯; Covid-19; Covid; Corona; Vaccine
করোনার ভ্যাকসিন ‘বঙ্গভ্যাক্স’  উৎপাদনে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদন পেলো গ্লোব বায়োটেক


ভয়েস অব পটিয়া-ন্যাশনাল ডেস্কঃ বাংলাদেশের ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালসের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের উদ্ভাবিত ‘কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের‘ ভ্যাকসিন উৎপাদনের জন্য ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদন পেয়েছে।

গ্লোব বায়োটেকের প্রধান  বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. আসিফ মাহমুদ এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

গ্লোব বায়োটেক উদ্ভাবিত এই ভ্যাকসিটির নাম দেয়া হয়েছে বঙ্গভ্যাক্স। 
গত বছরের জুলাই মাসে প্রতিষ্ঠানটি করোনার এই ভ্যাকসিনটি উদ্ভাবন করেছে বলে দাবি করে। মার্চ মাস থেকে তারা এই ভ্যাকসিনটি তৈরির কাজ শুরু করে। ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ঠিকমতো চললে ওষুধ প্রশাসনের কাছ থেকে ছাড়পত্রের জন্য আবেদন জানাবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রি-ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের তালিকাভুক্ত বাংলাদেশী এ প্রতিষ্ঠানটির ৩টি ভ্যাকসিন ইঁদুরের উপর সফল পরীক্ষা চালানোর পর এই ভ্যাকসিনটি কার্যকর ও সম্পূর্ণ নিরাপদ বলে দাবি করেছে। উল্লেখ্য বর্তমানে বিশ্বে ১৫৬ টি কোভিড-১৯ করোনার ভ্যাকসিন পরীক্ষামূলক প্রয়োগের পূর্বাবস্থায় রয়েছে। 

গ্লোব বায়োটেকের ব্যবস্থাপক ড. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন জানান, মানবদেহে প্রয়োগের আগে যে কোনো ড্রাগ বা ভ্যাকসিনের ম্যানুফ্যাকচারিং লাইসেন্সের প্রয়োজন হয়। গত ২৮ ডিসেম্বর তারা ওষুধ প্রশাসনের মহাপরিচালক কর্তৃক অনুমোদন পেয়েছেন। এখন তারা বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল থেকে অ্যান্টিজেন ক্লিয়ারেন্স নেবেন বলে জানান তিনি।


বিশ্বের অন্যান্য দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মত ‘কোভিড ১৯ করোনা ভাইরাসের’ ভ্যাকসিন আবিষ্কারের দৌঁড়ে গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড একমাত্র বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠানটি।

আরও পড়ুন >> বাংলাদেশের উদ্ভাবিত ‘করোনার’ ভ্যাকসিন কিনবে নেপাল 
Share To:

Voice of Patiya

Post A Comment:

0 comments so far,add yours