ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ বহুল প্রতিক্ষিত চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া অংশে নির্মিতব্য বাইপাস সড়কের একাংশে সৃষ্ট জটিলতার অবসান ঘটেছে। ওই অংশে বাড়িঘর, শ্মশান ও মন্দিরের কারণে ৪শ মিটার জমি নিয়ে জটিলতা ছিলো। যা নতুন করে জমি অধিগ্রহণ করে গত রবিবার মন্ত্রীসভায় অনুমোদন পায়। এর ফলে বাইপাস সড়ক নির্মাণে আরো গতি বাড়বে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা ।

ভয়েস অব পটিয়া-নিউজ ডেস্কঃ বহুল প্রতিক্ষিত চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া অংশে নির্মিতব্য বাইপাস সড়কের একাংশে সৃষ্ট জটিলতার অবসান ঘটেছে। ওই অংশে বাড়িঘর, শ্মশান ও মন্দিরের কারণে ৪শ মিটার জমি নিয়ে জটিলতা ছিলো। যা নতুন করে জমি অধিগ্রহণ করে গত রবিবার মন্ত্রীসভায় অনুমোদন পায়। এর ফলে বাইপাস সড়ক নির্মাণে আরো গতি বাড়বে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা ।

গত বছরের ১১ ফেব্রুয়ারী সৃষ্ট জটিলতার বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিতে পটিয়ায় আসেন সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। পটিয়ার সাংসদ সামশুল হককে সাথে নিয়ে সেদিন তিনি উপস্থিত সিদ্ধান্ত দেন। কিন্তু ওই সিদ্ধান্ত অনুমোদন পেতে প্রায় এক বছর সময় অতিবাহিত হয়েছে।

পটিয়া বাইপাস সড়কের ৭০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন
জানা যায়, ২০০৭ সালে গৃহীত পটিয়ার মনসার টেক থেকে দোহাজারীর সাঙ্গু সেতু পর্যন্ত সড়ক সরলীকরণ ও বাইপাস সড়ক নির্মাণ প্রকল্পটি হাতে নেয়া হয়। সে সময় মাটির অভাব, হিন্দুদের বাড়িঘর আর মন্দিরের দোহাই দিয়ে বাধার কারণে বাইপাসসহ সড়কের সরলীকরণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি। এদিকে পটিয়া পৌর এলাকায় যানবাহনের সৃষ্ট চাপে যানজট প্রকটরূপ ধারণ করেছে। এ অবস্থায় সাংসদ সামশুল হক চৌধুরীর প্রচেষ্টায় প্রকল্পটি কাঁটছাঁট করে শুধুমাত্র পটিয়া বাইপাস প্রকল্পটি হাতে নেয় সরকার। সড়কটি বাস্তবায়িত হলে পটিয়া পৌর এলাকায় যানজট কমার পাশাপাশি পটিয়া শহরের পরিধি বৃদ্ধি পাবে এবং কক্সবাজার ও বান্দরবানগামী যাত্রী-পর্যটকরা দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাবে। 

এদিকে ভাটিখাইন ৫ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার বাসিন্দারা জানান, বাইপাস উঁচু এবং গ্রামের মধ্য দিয়ে বাস্তবায়ন হওয়ায় গ্রামের লোকজনেকে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী, রোগীসহ সকলের কষ্টের সীমা ছাড়িয়ে গেছে। যার কারণে গ্রামের লোকজন ওই এলাকায় একটি আন্ডারপাস তৈরির জন্য আবেদন করেন। তাতে পটিয়া আসনের এমপি সামশুল হক চৌধুরী সুপারিশ করেন। কিন্তু গত এক বছর পেরুলেও আন্ডারপাস নির্মাণের বিষয়ে কোন কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। উক্ত এলাকার বাসিন্দারা অবিলম্বে আন্ডারপাস নির্মাণের জোর দাবি জানান।


পটিয়া সম্পর্কে জানতে আমাদের ফেসবুক পেজের সাথে থাকুন।
www.facebook.com/VoiceofPatiyaFans
Share To:

Voice of Patiya

Post A Comment:

0 comments so far,add yours

Note: Only a member of this blog may post a comment.